গৃহবধূকে নির্যাতনের অভিযোগে মামলা

prothom alo
গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি | আপডেট: ০২:২২, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৬ | প্রিন্ট সংস্করণ
পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলায় বাগানের গাছপালা নষ্ট করায় গরু তাড়িয়ে দেওয়ার জের ধরে গত বুধবার এক গৃহবধূকে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।
নির্যাতনের শিকার গৃহবধূর নাম শাহীনূর বেগম (৩৬)। তাঁকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি সুতাবাড়িয়া গ্রামের জাকির হোসেনের স্ত্রী। শাহীনূর বেগম বলেন, একই গ্রামের লতিফ হাওলাদারের সঙ্গে তাঁদের জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। গত মঙ্গলবার বাগানের গাছপালা নষ্ট করলে তিনি লতিফ হাওলাদারের একটি গরু তাড়িয়ে দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে লতিফ হাওলাদার, তাঁর ছেলে জহিরুল হাওলাদার ও সোহেল হাওলাদার তাঁকে মারধর ও গালিগালাজ করেন।

তথ্যসূত্র: প্রথম আলো, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

Advertisements

সোনাগাজীতে এক যুবক ও গৃহবধূকে বর্বর নির্যাতন

prothom alo
ফেনী অফিস | আপডেট: ০১:৫৭, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৬ | প্রিন্ট সংস্করণ
এক যুবক ও গৃহবধূকে মারধর, দুজনের মাথা ন্যাড়া করে জুতার মালা পরিয়ে গ্রাম ঘোরানো এবং চাঁদা আদায়ের অভিযোগে ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার চরদরবেশ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম ওরফে ভুট্টুকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গত শনিবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে ফেনী শহরের ডাক্তারপাড়ার একটি বাসা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। নুরুল ইসলাম উপজেলা যুবলীগেরও সাধারণ সম্পাদক। গতকাল রোববার বিকেলে আদালতের মাধ্যমে নুরুল ইসলামকে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ। এর আগে সকালে তাঁর সমর্থকেরা ফেনী-সোনাগাজী সড়কের বক্তারমুন্সি ডাকবাংলা ও মতিগঞ্জ এলাকায় অবরোধ করেন। প্রায় এক ঘণ্টা তাঁরা সড়কে অবস্থান করে বিক্ষোভ করেন। পরে পুলিশ তাঁদের ধাওয়া দিয়ে সরিয়ে দিলে সড়ক যোগাযোগ স্বাভাবিক হয়। পুলিশ, এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগীদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, চরদরবেশ ইউনিয়নের এক গৃহবধূর কাছ থেকে প্রতিবেশী এক যুবক কিছু টাকা ধার নেন। Continue reading

কুমিল্লায় নিষ্ঠুর নির্যাতনের শিকার হলেন বিধবা

ittefaq
মুরাদনগর (কুমিল্লা) সংবাদদাতা | ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ইং
কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার রামচন্দ্রপুর উত্তর ইউনিয়নের বি-চাপিতলা উত্তরপাড়া গ্রামে মঙ্গলবার এক বিধবা সুফিয়া বেগমের উপর নিষ্ঠুরভাবে নির্যাতন চালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনার বিচার ও আসামিদের গ্রেফতারের দাবিতে এলাকায় বিক্ষোভ হচ্ছে। নিন্দার ঝড় বইছে। ফেসবুকেও এই ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করা হচ্ছে। বিধবা সুফিয়া বেগমের অভিযোগ, মঙ্গলবার সকালে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটি হলে পাশের বাড়ির আরশ মিয়ার ছেলে সেলিম ও তার পরিবারের লোকজন আমাকে গাছের সঙ্গে বেঁধে মারধর করে। পরে ক্ষত স্থান, চোখ-মুখসহ সমস্ত শরীরে লবণ ও মরিচের গুঁড়া ঢেলে দেয়। লবণ ও মরিচের গুঁড়া মিশিয়ে আমার চোখে দিয়ে চোখ বেঁধে রাখে। ফেসবুকের মাধ্যমে এ ঘটনা জানার পর শুক্রবার সন্ধ্যায় বাঙ্গরা বাজার থানার এসআই মাহমুদুল হাসান রুবেলের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পেয়ে সেলিমের মা কোহিনুর বেগম ও ছোট ভাই জীবনকে আটক করে। এ বিষয়ে বাঙ্গরা বাজার থানার ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, বিষয়টি জানতে পেরে তদন্তের পর আমরা দুজনকে আটক করেছি। মামলার প্রস্তুতি চলছে।

তথ্যসূত্র: দৈনিক ইত্তেফাক, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

গৃহবধূকে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন

jugantor
গাজীপুর প্রতিনিধি | প্রকাশ : ৩০ আগস্ট, ২০১৬ ০৯:০১:১৪
গাজীপুরে গৃহবধূকে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন করে মৃত ভেবে ফেলে রেখে পালিয়েছে স্বামী, শাশুড়ি ও ভাসুর।
নির্যাতিত গৃহবধূর নাম এনি আক্তার (৩৩)। স্বামীর পরিবারের সদস্যদের অমানুষিক নির্যাতনে গৃহবধূ এনির রক্তে লাল হয়ে ওঠে ঘরের বারান্দা ও বাড়ির উঠান। এক পর্যায়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেললে তাকে মৃত ভেবে বাড়িঘরে তালা দিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায় নির্যাতনকারীরা। যাওয়ার সময় পানি ঢেলে রক্ত মুছে দেয়ার চেষ্টা করে। প্রতিবেশীদের মাধ্যমে খবর পেয়ে এনির বাবা-মা উঠানে রশিতে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় এনিকে উদ্ধার করে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। এনির বাবা মজিবর রহমান ও স্থানীয়রা জানান, চার বছর আগে এনির সঙ্গে বিয়ে হয় কাথোরার হাবিব উল্লাহ মাস্টারের ছেলে খায়রুল ইসলামের। এনির পরিবার অস্বচ্ছল থাকায় এ বিয়েতে খায়রুলের পরিবারের সম্মতি ছিল না। বিয়ের পর থেকেই এনিকে তালাক দেয়ার জন্য খায়রুলকে চাপ দিচ্ছিলেন তার মা রেহেনা বেগম ও বড় ভাই মঞ্জু। পরিবারের চাপে খায়রুল এনিকে তালাক দিলেও ক’দিন পরে আবার ৭ লাখ টাকার দেনমোহরে তাকে পুনরায় বিয়ে করেন। এ ঘটনায় খায়রুলকে পৈতৃক সম্পত্তি থেকেও বঞ্চিত করা হয়। দেড় বছর আগে তাদের একটি মেয়ে হয়। এতে এনির ওপর নির্যাতনের মাত্রা আরও বেড়ে যায়। Continue reading

মাগুরায় গাছে বেঁধে গৃহবধূকে নির্যাতন

ittefaq
মাগুরা প্রতিনিধি ১৪ আগষ্ট, ২০১৬ ইং
মাগুরা পৌর এলাকার কুকনা গ্রামে ছাগলে খেতের সবজি খাওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত শুক্রবার বিকালে গাছে বেঁধে মালতি রানী (৪০) নামের এক গৃহবধূকে নির্যাতন করার খবর পাওয়া গেছে। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করেছে। এ ঘটনায় দুইজনকে আটক করা হয়েছে। মালতি রানীর স্বামীর নাম রতন কুমার শীল। পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, মাগুরা পৌর এলাকার কুকনা গ্রামে ভরত কুমার ঘোষের সবজি খেতে ছাগলে গাছ খাওয়ার অপরাধে তিনি ও তার লোকজন গাছে দড়ি দিয়ে বেঁধে ছাগলের মালিক প্রতিবেশী রতন কুমার শীলের স্ত্রী মালতি রানীকে নির্যাতন করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায় এবং নির্যাতিত গৃহবধূকে উদ্ধার করে। সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার সুদর্শন কুমার রায় জানান, সামান্য ঘটনাকে নিয়ে গৃহবধূকে গাছে বেঁধে নির্যাতন করা হয়েছে। পুলিশ দুজনকে আটক করেছে।

তথ্যসূত্র: দৈনিক ইত্তেফাক, ১৪ আগস্ট, ২০১৬

স্বামীকে গাছে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে পিটিয়ে জখম

prothom alo
কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি | আপডেট: ০২:০২, আগস্ট ০২, ২০১৬ | প্রিন্ট সংস্করণ
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে স্বামীকে গাছের সঙ্গে বেঁধে রেখে প্রতিপক্ষের লোকজন তাঁর সামনেই স্ত্রীকে বিবস্ত্র করে বেধড়ক পিটুনি দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত শনিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার শিকার গৃহবধূর (৩৫) বাড়ি উপজেলার পতনঊষার ইউনিয়নের একটি গ্রামে। বর্তমানে তিনি মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এই ঘটনায় নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ গত রোববার একই এলাকার গনি মিয়ার ছেলে সুমন মিয়াসহ চারজনের নাম উল্লেখ করে কমলগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পূর্ববিরোধের জের ধরে শনিবার রাত আটটার দিকে সুমন মিয়ার নেতৃত্বে কয়েকজন ওই গৃহবধূর বাড়িতে যান। একপর্যায়ে তাঁকে ‘কথা আছে’ বলে ঘর থেকে বের হতে বলেন। Continue reading

গৃহবধূ-কিশোরকে এক রশিতে বেঁধে নির্যাতন

jugantor
চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি | প্রকাশ : ০১ আগস্ট, ২০১৬
কক্সবাজারের পেকুয়ায় এক গৃহবধূ (২৪) ও এক কিশোরকে (১৭) এক রশিতে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। নির্যাতনের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। রোববার রাত সাড়ে ১১টার দিকে পেকুয়া উপজেলার বলির পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার নেতৃত্বে ছিলেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের এক নেতা। তিন সন্তানের জননী ওই গৃহবধূর স্বামী মালয়েশিয়া প্রবাসী (৫০) বলে জানা গেছে। এলাকাবাসী জানায়, পেকুয়া সদর ইউনিয়নের প্রত্যন্ত এলাকা দক্ষিণ মেহেরনামার বলিরপাড়ার ওই প্রবাসী সাড়ে তিন বছর ধরে মালয়েশিয়ায় অবস্থান করছেন। মালয়েশিয়া যাওয়ার আগে তিনি ওই গৃহবধূকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। এর আগে তার প্রথম স্ত্রী মারা যান। ওই প্রবাসী মালয়েশিয়ায় যাওয়ার পর থেকে এলাকার কিছু লোক তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার চালাতে থাকে। Continue reading